কক্সবাজারে ফেসবুক হ্যাকিং করে পরিস্থিতি ঘোলাটে করার চেষ্টা

20191022_142928.jpg
নিজস্ব প্রতিবেদক :
কক্সবাজারের বিভিন্ন ফেসবুক আইডি হ্যাক করে হ্যাকার চক্র সরকার বিরোধী বিভিন্ন প্রচারণাসহ গুজব ছড়ানোর প্রচেষ্টা চালানোর অভিযোগ উঠেছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে ফেসবুক আইডি ব্যবহারকারীদের সতর্ক থাকার বিজ্ঞপ্তি প্রচার, সর্বত্র মাইকিংও করা হয়েছে।

এরপরেও হ্যাকারকারী দুষ্টু চক্র থেমেনেই। কক্সবাজার সদরের খুরুশকুল গ্রামের বাসিন্দা স্বর্ণাকার রুপম দে’র ফেসবুক হ্যাক করা হলে তাৎক্ষণিক তা প্রশাসনের নজরে আনা হয়। গুজব ছড়িয়ে পরিস্থিতি ঘোলাটে করার চেষ্টা ঘোলাটে করার চেষ্টাও ব্যর্থ করে দিয়েছে প্রশাসন।

এদিকে, হ্যাকার কারী চক্র গত ২১ অক্টোবর সোমবার কোন এক সময় হ্যাকারকাী চক্র কক্সবাজার শহরে বদরমোকাম এলাকার ঐতিহ্যবাহী পরিবারের সন্তান আলহাজ্ব নুরুল হুদার ছেলে প্রতিষ্টিত ব্যবসায়ী আবদুল্লাহ-আল-মাসুম রুমেলের ফেসবুক হ্যাক করা হয়। হ্যাকারকারী চক্র তার ফেসবুক ওয়ালে বিভিন্ন সরকার বিরোধী অপপ্রচার, গুজব ছড়ানোর কাজে নিয়োজিত রয়েছেন। ফেসবুক ব্যবহারকারী আবদুল্লাহ-আল-মাসুম রুমেল বলেন, কে বা কারা গত সোমবার কোন এক সময় তার ফেসবুক হ্যাক করে। তার ওয়ালে সরকারসহ বিভিন্ন সরকার বিরোধী লেখা লিখেছে। তা নিয়ে তিনি চরমভাবে উদ্বিগ্ন।

তিনি বলেন, বর্তমানে তার বাবা ভিষম অসুস্থ, তিনি নিজেও অসুস্থ। বাবার চিকিৎসা কাজে তিনি রয়েছেন কক্সবাজারের বাইরে।
তার ফেসবুক হ্যাক করে এ ধরনের অপপ্রচার ছড়ানো ও অপ্রত্যাশিত বিষয় দেখে তিনি ও তার পরিবার চরমভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন।

এ বিষয়ে সর্তক থাকার জন্য সব মহলকে অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।
এঘটনায় তিনি থানায় সাধারণ ডায়েরীও করতে যাচ্ছেন বলে জানান।

কক্সবাজার জেলা পুলিশ সুপার এবিএম মাসুূূদ হোসেন বিপিএম ফেসবুক ব্যবহারকারীদের সর্তক থাকার বিজ্ঞপ্তি প্রচার করেছেন।

এদিকে, ভোলার বোরহান উদ্দিনের মতো গুজব ছড়িয়ে পরিস্থিতি ঘোলাটে করার একটি প্রচেষ্টা কক্সবাজারে ভণ্ডুল করে দিয়েছে পুলিশ। একটি চক্র গুজব ছড়ানোর জন্য যার ফেসবুক হ্যাক করেছিল তিনিও একজন সনাতনী ধর্মাবলম্বী।
কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এ বি এম মাসুদ হোসেন একথা নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ সূত্রে আরো জানা গেছে, কক্সবাজার সদরের খুরুশকুল গ্রামের বাসিন্দা স্বর্ণাকার রুপম দে’র ফেসবুক হ্যাক করা হলে তাৎক্ষণিক তা সদর মডেল থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়।

পুলিশ রবিবার দিবাগত রাতে দ্রুত ফেসবুক ব্যবহারকারী যুবক রুপম দে’কে তার মোবাইলসহ হেফাজতে নিয়ে আসে।

গত সোমবার সন্ধ্যায় ফেসবুক ব্যবহারকারী যুবক রুপমকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। গুজব ছড়ানোর উদ্দেশে যে চক্রটি এ কাজে জড়িত রয়েছে পুলিশ তাদের ধরার জন্য চেষ্টা করছে।

Top