দক্ষিণ মিঠাছড়িতে ভূমিদস্যুর হামলায় একই পরিবারের আহত ২

75439246_589420861598226_7298806047739740160_n-copy.jpg

বার্তা পরিবেশক :

রামুর দক্ষিণ মিঠাছড়ি পানের ছড়ার চিহ্নিত ভূমিদস্যুর হামলায় একই পরিবারের দুই জন আহত হয়েছে। তার মধ্যে একজনের অবস্থা আশংকাজনক। বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) সকাল ৮ টার দিকে পানের ছড়ার পশ্চিমকুলে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে দক্ষিণ মিঠাছড়ির পানেরছড়া এলাকার ফরিদুল আলমের জায়গা দখলে নিতে মরিয়া হয়ে উঠে একদল ভমিদস্যু। তারই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার ভমিদস্যু সন্ত্রাসী বাহিনীরা অতর্কিত হামলা চালিয়ে ফরিদুল আলমের ছেলে আব্দুল হালিম ও আব্দুল মুবিন গুরুতর আহত হয়। যার অংশ হিসেবে ফরিদুল আলমের জমি দখলে নিতে নানা ষড়যন্ত্র শুরু করে এই চক্রটি।

আহত আব্দুল হালিমের পিতা ফরিদুল আলম জানান, বৃহস্পতিবার সকালে হঠাৎ কলিম উদ্দিনের নেতৃত্বে সলিম উল্লাহ, শফিকুল্লাহ, আমান উল্লাহ সহ ১০-১২ জন সশস্ত্র বাহিনী আমার পরিবারের উপর হামলা চালায়। এসময় হামলাকারীরা আমার দুই ছেলের উপর অতর্কিত হামলা করে। এতে হালিম ও তার সহোদর আবদুল মুবিনকে কিরিচ, দা ও লোহার রড নিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে।

ফরিদুল আলম আরো জানান, ভমিদস্যুরা দীর্ঘদিন ধরে আমার জায়গাটি দখলে নিতে মরিয়া হয়ে উঠছিল। তারা আইন সালিশ কিছু না মেনে বার বার এভাবে হামলা করে যাচ্ছে। তার মধ্যে হালিমের পেটে মাথায় বড় ধরণের জখম হয়। পরে তাদের আত্মচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় হালিম ও মুবিনকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে হালিমের পেটের জখম গুরুতর হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রামু থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল খাইয়ের বলেন, ঘটনা শুনে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং অভিযোগ পেলে পুলিশ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে হামালাকালীদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে আহত পরিবার সূত্রে জানা যায়।

Top